লাইফস্টাইল

ব্রেকআপ এর তিন বছর পূর্ণ হল।

 


বলতে গেলে আমি তাকে একদমই ভুলে গেছি, ‘সে’ নামক প্রাণীটা যে আমার জীবনের পুরো ২টা বছর ছিল তা যেন আমার মনে নেই। কিন্তু আদৌ তা সত্যি না…..
এখনকার যুগে কারো সাথে দুই বছরের সম্পর্ক ভেঙে গেলে মানুষ আগে বেড়ে যায়,, কিন্তু আমি পারিনি ।
আমার বয়স 21 বছর,, সবাই বলে আমি দেখতে বেশ সুন্দর এবং আকর্ষণীয়।
ভালো জায়গায় পড়াশুনা করছি পারিবারিক অবস্থান ও আল্লাহর রহমতে ভাল,, কোন জায়গায় গেলে আমি সবার মধ্যমণি হয়ে থাকি।
ফেসবুকে ইনস্টাগ্রামে হাজার হাজার ফলোয়ার,,
কত ছেলে আমার সাথে প্রেম করার জন্য পাগল,,
আমার একটা ইশারাই তারা আমার জন্য সব করতে পারবে এমন অনেক ছেলেই আছে।
কিন্তু ভালবাসার জায়গাটাতে সেই একজন ছাড়া অন্য কাউকে বসাতে পারিনি কারণ চোখটা বন্ধ করলে আজও শুধুমাত্র তার চেহারাটা এ চোখে ভাসে।
জানিনা কার জন্য ভালোবাসা কেমন..??
তবে আমার মনে হয় ভালোবাসা মন থেকে শুধু একজনকেই বাসা যায়,, আমার মনের ব্যথা কাউকে বলে বোঝাতে পারি না আমি,,
তাই কখনো চেষ্টাও করিনি।

মাঝে মাঝে ভাবি তোমার কি আমার কথা একটুও মনে পড়ে না?
তুমি না বলতে তুমি শুধু আমাকে ভালোবাসো.. আমার জায়গা তোমার জীবনে আর কেউ নিতে পারবে না.. তাহলে এখন কিভাবে আমাকে ছাড়া এতগুলো দিন কাটাচ্ছে তুমি??

আগে না তুমি স্বপ্নেও যদি দেখতে আমি তোমার থেকে দূরে চলে গেছি,, ভয়ে ঘেমে একাকার হয়ে যেতে,, মধ্যরাতেই আমাকে মেসেজ দিয়ে বলতে যে এমন খারাপ স্বপ্ন দেখেছিলে তুমি,,
আর আমি তোমাকে আশ্বাস দিতাম
-ধ্যাত পাগল এসব কি ভাবছো?? আমি তোমাকে ছেড়ে কই যাব??
এই কথাটাই তো সব সময় বলতাম।

মাঝেমধ্যে যদি আমার আগে তুমি ঘুম থেকে উঠতে,,,
আমি যতক্ষণ পর্যন্ত তোমাকে মেসেজ না দিতাম,, ততক্ষণ পর্যন্ত তুমি খেতেও না,,

নিজেকে নিয়ে ভাবার আগে তুমি আমাকে নিয়ে ভাবতে,, এত বেশি ভালবাসতে তুমি আমাকে। এই সবকিছু কি তোমার মনে পড়ে না??

মনে আছে? তুমি আগে সবজি খেতে পছন্দ করতে না। কিন্তু আমার হাতে রান্না যে কোন সবজি তুমি চুপচাপ খেয়ে নিতে,, একবারও বলতে না যে সবজি তোমার খারাপ লাগছে.. খেতে পারছো না…
তোমার কাছে আমার রান্না আর আমার তোমাকে হাত দিয়ে খাইয়ে দেয়া যেন অমৃত ছিল।

জানো আমার পুরনো প্রত্যেকটা স্মৃতি মনে পড়ে,,
যেদিন প্রথম তুমি আমাকে ভালবাসি বলেছিলে আমি একদম অপ্রস্তুত ছিলাম আর শক হয়ে গিয়েছিলাম,,
আস্তে আস্তে তুমি আমাকে ভরসা দিতে শুরু করলে যে তুমি সত্যিই আমাকে ভালোবাসো।

যেদিন প্রথম বার আমার হাত ধরে ছিলে মনে পড়ে সেদিনের কথা?? সেই মুহূর্তটা আমি অনেক ঘাবড়ে গিয়েছিলাম কিন্তু পরক্ষনেই মনে হয়েছিল
এটা হচ্ছে আমার পরম ভরসার হাত,, যেই হাত কোনদিন আমাকে ছেড়ে যাবে না।
এই হাতটা ধরে জীবনের শেষ পর্যন্ত পারি দিবো।

এমন নয় যে জীবনে তোমার সাথে পার করা শুধু প্রথমবারের সবকিছুই মনে আছে,,
সত্যিটা হল তোমার সাথে পার করা প্রতিটা মুহূর্ত আমার মনের মধ্যে গেঁথে আছে..

সময়ের সাথে সাথে নাকি সবকিছু ফ্যাকাশে পড়ে যায়…
কই??
আমার মন থেকে তো আজও একটা স্মৃতি ও ফ্যাকাসে পরেনি,,

যেদিন আমার হাতটা তোমার বুকের মধ্যে নিয়ে চোখ বন্ধ করেছিলে বেশ অনেকক্ষণ চুপ করে ছিলে এবং চোখ খোলার পর তোমার চোখে আমি অনেক ভালোবাসা দেখেছিলাম,,
সেই দিন তোমার মুখে কিছু বলতে হয় নি কিছু আমিও বলিনি,,
অনুভূতিটাই সব বলে দিয়েছিল।

পুরো দুটি বছরের মধ্যে তোমার সাথে যতবার আমার ঝগড়া হতো ঠিক ততবার রাতে আমরা কেউই ঘুমাতে পারতাম না
এমন কত কত রাত কেটে গেছে আমাদের নিশ্চুপ কান্না ও অভিমান নিয়ে।
অনেক সময় মাঝরাতে অনলাইনে ঢুকে দেখতাম তুমি আছো কিনা??
দেখে মাঝেমধ্যে বেরিয়ে আসতাম আবার অনেক সময় স্বাভাবিক ভঙ্গিতে মেসেজ দিতাম -এখনো ঘুমাওনি কেন??
যদিও আমি জানতাম কারণটা ছিল আমাদের ঝগড়া,, কারণটা ছিল আমাদের রাগ
তবুও তোমাকে জিজ্ঞেস করতাম,, কথা বলার বাহানা আর কি,,
সত্যি কথা বলতে তোমার সাথে কথা না বলে আমি বেশিক্ষণ থাকতে পারতাম না,,
একদম দম বন্ধ হয়ে আসত।

আমি তো আমার অনুভুতি গুলো এতটা ভালো করে তোমাকে কোনদিন বোঝাতে পারিনি,, অনেক বেশি লজ্জা কাজ করত।
কিন্তু তুমি তো সবসময় বলতে আমার সাথে কথা না বললে তুমি অস্থির হয়ে যাও,, আমি নিজেও অনেকদিন তোমার এমন অবস্থা দেখেছি,, অস্থিরতা দেখেছি,, তাহলে এতগুলো দিন কিভাবে থাকো আমাকে ছেড়ে? তোমার কি কোন কষ্ট হচ্ছে না??

আগে আমার গুডনাইট ছাড়া তুমি ঘুমাতে পারতে না,, এখন কি মিস করো না আমার গুড নাইট??

আমার নাক আর থুতনি তোমার ভীষণ পছন্দের ছিল তাই না? এখন কি একবারও আমাকে দেখতে ইচ্ছা করে না??

আমাদের প্রতিটা মুহূর্ত প্রতিটা দিন আমি মিস করি,, তোমার ওই হাসিটা আমি খুব বেশি মিস করি।
তোমাকে হাসলে মনে হতো পৃথিবীর সবথেকে সুন্দর পুরুষ তুমি,,
আমার চোখে তুমি সব ভাবে পৃথিবীর সবথেকে সুন্দর পুরুষ ছিল।

কিন্তু হঠাৎ করে কেন আমার চরিত্রের দোষ দেখিয়ে দূরে চলে গেলে??
তুমিও এটা ভালো করেই জানতে যে এই দুইটা বছরে তুমি ছাড়া অন্য কাউকে নিয়ে আমি ভাবতেও পারিনি,, সম্পর্কে জড়ানো তো দূরের কথা।

তোমার মধ্যেই তো আমি নিজেকে পেয়েছি,, তোমার ভালবাসায় তো আমায় পূর্ণ করেছিল,, তোমার থেকেই তো আমি ভালোবাসা শিখেছি,,

চরিত্রের দোষ দিয়েছিলে আমার
কিন্তু ফেইসবুকে ইনস্টাতে মেয়েদের সাথে নানা ধরনের ছবি আপলোড করো তুমি,,,
সমস্যা বলেছিলে আমার মধ্যে আছে
কিন্তু নতুন নতুন মেয়েরা এসে তোমার পোস্ট গুলোতে কমেন্ট করে
বলতে ভালবেসেছিলে তুমি
কিন্তু আজ পর্যন্ত এ ভালবাসাটাকে রক্ষা করে যাচ্ছে আমি।

জীবনে একবারই তুমি আমাকে জড়িয়ে ধরেছিলে সেদিন তোমার চোখে দেখেছি আমাকে হারানোর ভয়,,
মনে মনে সেদিনই প্রতিজ্ঞা করেছিলাম
কোনদিন তোমাকে ভালোবাসা কমাবো না,, তোমার সুখে দুখে পাশে থাকবো,,
ছেড়ে যাবো না তোমাকে
কিন্তু আমি কত বোকা ছিলাম তাই না??

সবাই ভাবতো গেলে হয়তো আমি তোমাকে ছেড়ে চলে যাব,,
কিন্তু……
তুমি আমাকে মাঝ রাস্তায়,, সব স্বপ্ন,, সব আশা,, সবকিছু ভেঙে দিয়ে চলে গিয়েছো,,
খুব বোকা ছিলাম কারণ একবার দুইবার তো না বারবার আমাদের মধ্যে ঝামেলা হলে
তুমি আমাকে রেখে চলে যেতে,,
আমি কখনোই সাহস করতে পারিনি,, কারণ তোমাকে ছাড়া তো নিজেকে ভাবতেও পারিনি। আমি আমার ভালোবাসাটা ওত ভালোভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারতাম না,,
কিন্তু ভালবাসাটা খাঁটি ছিল।

শেষ বারের সময় তুমি প্রথম প্রথম যাওয়ার পরে তোমার আমাকে নিয়ে বলা সব সত্য মিথ্যা কানে আসতে শুরু করে অনেক কষ্ট হতো…
একে তোমাকে হারানোর কষ্ট
অন্যদিকে, আজেবাজে সব কথা।
মেনে নিতে পারছিলাম না,, রাতে ঘুমাতে পারতাম না।
সারা সারা রাত চোখের পানি ঝরত..
মাঝেমধ্যে মাঝরাতে ঘুমালেও
যখন হুট করে ঘুম ভাংতো তখন মনে হতো কলিজায় বিরাট একটা পাথর রেখে দিয়েছে কেউ,,
তুমি যাওয়ার পরে আমি আমার কষ্ট কাউকে বুঝতে দিইনি।
বান্ধবীদের দেখতাম সবাই কষ্টের কথা বলে,, কান্না করে,, সবার সঙ্গে শেয়ার করে,, এতে নাকি মনের কষ্ট কমে।

শুনেছি আমাদের ইসলাম ধর্মে পুরুষের পাঁজরের একটা হাড় দিয়ে তার স্ত্রীকে তৈরি করা হয়। যখন মাঝে মাঝে মনে করি যে যাকে আমি এত ভালবেসেছি তার পাঁজরের হাড় দিয়ে অন্য কোন স্ত্রী তৈরি হয়েছে হয়তো,, সে কোনভাবেই আমার না,, তখন অনেক কষ্ট হয়,, অনেক হাহাকার,, অনেক অপূর্ণতা মনের মাঝে বিরাজ করে।
জানো আমার একটা ভয় কাজ করত,, তোমার কথা বলে আমি যদি কাদি হয়তো,, এই কান্নার কথা তুমি পর্যন্ত চলে যাবে। তাই কোনদিন চাইনি এভাবে কাঁদতে,, তোমার কথাও কারো সামনে কখনো বলিনি,
আমাকে যে ছেড়ে গেছে তাকে ছেড়ে ভালোই আছি এটাই সব সময় বুঝিয়েছি।

ব্রেকআপের প্রথম প্রথম অনেক চেষ্টা করেছি তোমাকে ভুলে যেতে,,,
তখন দেখতাম কষ্ট আরো বেশি বাড়তো,, এরপর থেকে চিন্তা করলাম,, তোমায় ভুলা আমার পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না,, তাই মনের গহীনে তোমাকে একটা বাক্সবন্দি করে রেখে দেই। মাঝেমধ্যে মধ্যরাতে বাক্স খুলে স্মৃতিচারণ করে,, আবার তালা বন্ধ করে চোখের পানি মুছে ঠোঁটের কোণে একটা হাসি নিয়ে একটি নতুন দিনের সূচনা করি।

রাস্তায় যখন কোন বিশেষ দিনে জুটিদের দেখি একসাথে ঘুরতে,, ভালো লাগে,, মনে পড়ে আমাদের একত্রে পালন করা বিশেষ দিনগুলোর কথা। যদিও একটা শূন্যতা কাজ করে,, হাহাকার থেকেই যায় কিন্তু পরক্ষনেই মনে করি
– থাক,, আজ আমার পাশে নেই তুমি,, তাতে কি হয়েছে?? একসময় তো ছিলে,, তখন তো কিছু সুখের স্মৃতি কাটিয়েছি একসাথে। অনেক স্মৃতি আছে আমাদের ছোট ছোট খুনসুটি,, ভালোবাসার,, হাসির,, কান্নার,, রাগ- অভিযোগের এগুলো খুব বেশি না হোক তবুও তো আছে,,,

জানো??
সেই প্রথম থেকে নিয়ে আজ পর্যন্ত তোমার প্রতি আমার বিন্দুমাত্র ভালোবাসা কমেনি,,
শুধু ভালোবাসার গুলো কিভাবে লুকাতে হয় তা ভালোভাবেই শিখে গেছি,,
ব্যাপারটা এমন নয় যে তুমি যদি ফিরে আসো আমি তোমাকে কখনো গ্রহণ করব,,
কারণ যে অপমান তুমি আমাকে দিয়েছো তা আমার প্রাপ্য ছিল না,,
তোমাকে আমি তখনও কিছু বলিনি সামনে যদি কখনো আবার দেখাও হয়,,
তখনো কিছুই বলবো না,, কারণ যাকে ভালোবাসা যায় তাকে মানুষের কাছে ছোট করা যায় না,,

আমাকে অনেকে আছে বিয়ে করতে চায়,, বাড়ি থেকে বিয়ের জন্য মাঝেমধ্যেই ছেলে দেখতে চায়,, আমি এটা সেটা বলে কথা কাটিয়ে দিই,, কারণ মনে একজন আর পাশে একজন এভাবে জীবন কাটানো যায় না,, কখনো সুখ আসে না,,

আর কে বলে যে সুন্দরী হলেই ভালোবাসা পাওয়া যায়?
সুখী হওয়া যায়?
বা সুন্দরী মেয়েরা ভালবাসতে জানেনা?

এই যে আমি ভালোবাসছি এমন একজনকে যে আমার না,,
হ্যাঁ আমি অনেক সুন্দর কিন্তু আমি যাকে ভালোবাসি তার ভালোবাসা আমার ভাগ্যে নেই,, আমি এজন্য জীবনে আর কারো প্রত্যাশা করি না।
আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি সমাজ এরমধ্যে ভালো একটা অবস্থানে আছু আমার আপাতত কারো প্রয়োজন নেই।
স্মৃতিগুলো আছে যা চাইলেও সে নিয়ে নিতে পারবে না বা আমিও আমার জীবন থেকে মুছে ফেলতে পারব না,,
এখন শুধু একটা হাসি নিয়ে বেঁচে থাকতে হবে,, আর ভালোবাসা তো জীবনের একটা অংশ
তাই এই ভালোবাসার সুখের স্মৃতিগুলোই আমি মনে রেখে বাকি সব কাজ সামলাই,,
বাকি সবকিছু করছি,,

জীবন মানেই তো কিছু পূর্ণতা,,
কিছু অপূর্ণতা, ,
কিছু নিঃশ্বতা,,
আমার জীবনে না হয় অপূর্ণতার দিকটায় তোমাকে হারিয়ে হলো,,
আমি না হয় কখনো তুমিময় হতেই পারলাম না,, তাতে কী হয়েছে? জীবন তো থেমে থাকবে না। জীবন নিজ গতিতে চলছে আর চলতেই থাকবে….

“পাথরের পৃথিবীতে কাচের হৃদয়,,
ভেংগে যায়,, যাক তার করি না ভয়,,
তবু প্রেমের তো শেষ হবে না,,
তবু প্রেমের তো শেষ হবে না….”

কথা গুলো ভাবতে ভাবতেই দেখি ক্লাসের সময় হয়ে গেলো,, গানটাও বন্ধ করে উঠে পরলাম ক্লাসে যাবার উদ্দেশ্যে।

( এই লেখাটা লিখতে আমি তিনদিন টেবিলে বসেছি প্রত্যেকবারই লিখব লিখব করে উঠে গিয়েছি,,
বারবার হাত কেপেছে লেখাটা লিখতে গিয়ে,, এতগুলো অনুভূতি একত্রিত করে লিখা আমার জন্য বেশ কঠিন মনে হচ্ছিল,,
জানিনা কতটুকু তুলে ধরতে পেরেছি
কিন্তু ব্রেকআপের পর একটা সাধারণ মানুষের মনের কিছু অনুভূতিগুলোর অংশবিশেষ তুলে ধরার চেষ্টা মাত্র,,
ভুল ত্রুটি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন)

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button